করোনাকালের মানসিক চাপ,উচ্চরক্তচাপ এবং সর্দি-কাশি শ্বাসকষ্ট থেকে বাঁচাবে শুষনি শাক

হাকীম এফ শাহজাহান :: করোনা আপনাকে ধরুক আর না ধরুক। করোনার কুফল কিন্তু সবাইকে ধরে ফেলেছে। অলরেডি বিষন্নতা,উচ্চরক্তচাপ,হতাশা নিদ্রাহীনতা কমবেশি সবারই সমস্যা করছে।

করোনার প্রভাবে গোটিা ‍দুনিয়ার আর্থ-সামাজিক অবস্থা খুব খারাপের দিকে যাচ্ছে। এতে করে আমরা সবাই একটা অসুস্থ অবস্থার দিকে ধাবিত হচ্ছি।

এসব কারনে যে শারিরিক সমস্যাগুলো হচ্ছে তা থেকে রেহাই পেতে সবচেয়ে সস্তা এবং সহজলভ্য ভেষজ শুষনি শাক আপনাকে স্বস্তি দিবে।

বাড়ি পাশেই অজস্র শুষনি শাক। হাত বাড়ালেই পাবেন। তাই হয়তো এর কদর করে না কেউ। কিন্তু এই করোনাকালের দু:সময়ে আপপনি যদি শুষনি শাকের কদর করেন,তাহলে আপনি করোনার আতংক থেকে রেহাই পাবেন ইনশাআল্লাহ।

শুষনি শাককে আমরুল শাক বলে। অনেকই ভুল করেন। খেয়াল করতে হবে যে শুষনি আর আমরুল দেখতে একই রকম হলেও পার্থক্য আছে। শুষনি স্বাদে টক নয়, কিন্তু আমরম্নল তিক্ত; কষায় স্বাদযুক্ত শুশনি তে চারটি পাতা থাকে। আমরুলে তিনটি।

আমরুলকে তাই তেপাত্তি বলে। আর শুষনির চার পাতা বলে চৌপাতিয়া বা চৌপাত্তি বলেও চেনে অনেকে।

করোনাভাইরাস সংক্রমনের বড় আলামত সর্দি জ্বর কাশি শ্বাসকষ্ট। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত না হলেও এই সমস্যাগুলো যাদের আছে,তারা করোনাভাইরাস সংক্রমনের জন্য খুবই ঝুঁকিপূর্ণ।

এই চার সমস্যাই দুর করবে শুষনি শাক। শুষনি শাকের কাশি ও কফ নিরাময়কারী ভূমিকা বিজ্ঞানীদের গবেষণার দ্বারা প্রমাণিত।

নিদ্রাহীনতায় যারা ভোগেন তাদের নিয়মিত শুষনি শাক খেলে ঘুমের সমস্যা কেটে যাবে । এতে করে আপনার শরীরে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়বে।

মাথায় যন্ত্রণা হলে শুষনি শাক নিয়মিত খেলে মাথায় যন্ত্রণা আস্তে আস্তে সেরে যাবে ।

রক্তচাপ বেশি হলে শুষনি শাক বেটে অল্প চিনি মিশিয়ি শরবত বানিয়ে খেলে রক্তচাপ কমে যাবে ।

শৈশবকাল থেকে যাদের মেধা কম, তাদের টানা তিন-চার মাস শুষুনী শাক খাওয়ালে মেধা বাড়বে।

নিয়মিত শুষনি শাক খেলে মাথার যন্ত্রণা, তীব্র মানসিক চাপ, উচ্চ রক্তচাপ, হাঁপানি, শ্বাসকষ্ট, গায়ে ব্যথা, পায়ের পেশির অনিয়ন্ত্রিত সংকোচন, বাত, জিভে ও মুখে ক্ষত, চর্মরোগ ইত্যদি দূর হয়।

চোখের রোগ, ডায়াবেটিস ও ডায়ারিয়া নিরাময়ে শুষনি পাতার রস কার্যকর।

কোথায় পাবেন ?
বাড়ি থেকে বের হলেই পাবেন। গ্রামে যেখানে সেখানেই পাওয়া যায়। শহরে বিভিন্ন রাস্তার ধারে বা পতিত জায়গায় পাবেন।

কীভাবে খাবেন ?
তাজা শাক তুলে এনে পাতার রস করে ১ বা ২ চামচ সকালে রাতে ১ সপ্তাহ সেবন করুন।

শ্বাসকষ্ট দূর করার জন্য শুষনী শাকের রস ২ চামচ অল্প মাত্রায় গরম করে পান করুন।

উচ্চরক্তচাপ কমাতে কাঁচা শাক বেটে ১ চামচ রস আধাগ্লাস পানিতে মিশিয়ে ২ সপ্তাহ পান করুন।

জ্বর কমাতে শুষনি শাকের পাতার রস ১ চামচ সকালে ও সন্ধ্যায় ৩ দিন সেবন করুন।

তাজা শাক তুলে এনে রান্না করেও খেতে পারেন।

সতর্কতা :
শুষনি শাকের তেমন কোন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া নেই। তবে বেশি সেবন করলে এলার্জিক সমস্যা হতে পারে।

সুস্বাস্থের সুখবর
[ শেফা স্মার্ট হাসপাতালের সৌজন্যে প্রকাশিত ]

হাকীম এফ শাহজাহান
ডিইউএমএস
হামদর্দ ইউনানী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল,বগুড়া।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *